সৌন্দর্য বর্ধনে কন্টাক্ট লেন্স এর ব্যবহার।

সৌন্দর্য বর্ধনে কন্টাক্ট লেন্স এর ব্যবহার, এর ব্যবহার বিধি ও এ থেকে কি ক্ষতি হতে পারে?

কন্টাক্ট লেন্স এর ব্যবহার
কন্টাক্ট লেন্স এর ব্যবহার

আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আপনাদের সাথে আলোচনা করব, কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহারে কিভাবে সৌন্দর্য বাড়ায়, এর ব্যবহার বিধি ও এ থেকে কি ক্ষতি হতে পারে?

কন্টাক্ট লেন্স কি ? 

কন্টাক্ট লেন্স( Contact lense) হচ্ছে ডিস্পোসেবেল, সফট ,পাতলা পলিথিন এর মত ছোট গোলাকার বস্তু বিশেষ যেটাকে দিয়ে চোখের মনির উপরে যথাযথ নিয়ম মেনে লাগানো লাগে।

বর্তমান সময়ে এখন বেশি ভাগ দেখা যায় যে , কন্টাক্ট লেন্স ২টি প্রধান কারণে সব থেকে বেশি পরিমানে ব্যবহৃত হয়ে থাকে, চোখের ভিতরে সমস্যার হলে সেই কারনে ব্যাবহার করা হয়ে থাকে আর চোখ টাকে আরো বেশি পরিমানে আকর্ষণীয় বানানোর জন্য অর্থাৎ ফ্যাশন করার জন্য ও ব্যাবহার করা হয়ে থাকে।

আবার আমাদের ভিতরে অনেকেই আছে যারা চোখের সমস্যার জন্য ব্যাবহার করে থাকে। ফ্যাশনাবল লেন্স বলতে এখানে কিন্তু কালার লেন্স এর কথা বলা হচ্ছে। আর এটা কিন্তু মুহূর্তের ভিতরেই আপনাদের চোখের রং পাল্টে দিবে।

আজকে দেখা যাবে আপনাদের চোখের কালার  নীল সাগরের মত হয়ে গেছে, তো কালকে আবার  দেখা যাবে হ্যাজেল এর মত হয়ে আছে। আর তার পরের দিন আবার দেখা যাবে যে, ঘোলা ঘোলা  হয়ে গিয়েছে।

আর অপ্টিকাল সমস্যার জন্য যে লেন্স ব্যবহার করা হয়ে থাকে, সেগুলার ভিতরে অনেক বেশি  পাওয়ার থাকে। বাংলাদেশের চক্ষু সমস্যা এর জন্য কিন্তু ডাক্তারেরা সাধারনত  ভাবে স্বচ্ছ লেন্স দিয়ে থাকে। আর তার কারন হল যে কালার পাওয়ার যুক্ত লেন্স বাংলাদেশের ভালো ব্র্যান্ড খুব বেশি একটা পাওয়া যায় না , অনেক অল্প পরিমানে আছে। আর সেইগুলো ঠিক রকম ভাবে সফট আর থাকে না আর যেটা কিন্তু আপনাদের চোখের উপর স্ট্রেস ফেলে দিতে পারে । ফলে চোখ গরম হয়ে যেতে পারে ২-৩ ঘণ্টা যাওয়ার পরে।

কন্টাক্ট লেন্স কয় প্রকার এবং কি কি?

এই কন্টাক্ট লেন্স অথবা চোখের লেন্স সাধারণত তিন প্রকারের হয়ে থাকে ৷

  • হার্ড কন্টাক্ট লেন্স

হার্ড লেন্স হল একটা স্বচ্ছ মানের পস্নাস্টিক। এটা কিন্তু সবথেকে ভালো দৃষ্টিশক্তি দিবে। সমস্যা হল  হার্ড লেন্সের মাপজোক অত্যন্ত সূক্ষ্ণ হয়ে থাকে, না হলে দেখা যায় যে , সেট করা বেশ কষ্ট হয়ে যায়। আর এই লেন্সের ভিতরে দিয়ে অক্সিজেন আসা যাওয়া করতে পারে না।

আর তার জন্য ৪ ঘণ্টা পরে পরে আপনাদের খুলে ধুয়ে আবার  নতুন করে পরা লাগবে। আমাদের কর্নিয়া বাতাস হতে অক্সিজেন গ্রহণ করে তারপরেই কিন্তু সুস্থ থাকে। হার্ড লেন্স তাতে সমস্যা হয়ে দারিয়ে থাকে। অনেক দিন পর্যন্ত ভাল থাকে আর দামে ও অনেক কম এবং অনেকটাই বেশি পরিষ্কার পরিছন্ন থাকে।

  • জি পি কন্টাক্ট লেন্স
  • সফট কন্টাক্ট লেন্স

কন্টাক্ট লেন্স চোখের সৌন্দর্য কিভাবে বাড়ায় ?

মানুষেরা বর্তমান সময়ে এখন তারা তাদের নিজেদেরকে অন্যদের কাছে  ভাল ভাবে উপস্থাপন করার জন্য মানে যাতে তাদেরকে অন্য মানুষদের কাছে সুন্দর লাগে তার জন্য ও এই  কন্টাক্ট লেন্স ব্যাবহার করে থাকেন। কন্টাক্ট লেন্স ব্যাবহার করলে আসলে একজন মানুষের চোখের কালার বা রং একেল সময়ে একেক রকমের দেখা যায়। আর এই কন্টাক্ট লেন্স এর ব্যাবহার কিন্তু প্রতিনিয়তভাবে বেড়েই চলছে। অনেক মানুষ আছেন যারা এই কন্টাক্ট লেন্স  শখ করে ও ব্যাবহার করে থাকেন। 

বিভিন্ন রকমের প্রোগ্রাম অথবা অনুষ্ঠানে গেলে সেই সময়ে নারীরা নিজেদেরকে অন্যদের কাছে  আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য কন্টাক্ট লেন্স তাদের চোখ এর ভিতরে পড়ে থাকেন। অনেকেই আবার আছেন যারা আবার চশমার পরিবর্তে কন্টাক্ট লেন্স পরেন। কিন্তু কন্টাক্ট লেন্স অনবরত ভাবে যদি পরতেই থাকেন তাহলে কিন্তু আপনাদের চোখ এর ভিতরে সমস্যা হতে পারে। আর কি সমস্যা হতে পারে সেই বিষয় সম্পর্কে যদি আপনারা বিস্তারিত ভাবে জানতে চান তাহলে আমাদের এই আর্টিকেলটি পরতে থাকুন সকল তথ্য জেনে যাবেন।

কি কি সমস্যা হতে পারে ? 

আমাদের সকলের চোখের পেশীগুলি আসলে শরীরের অন্য সব পেশীর থেকে অনেক সূক্ষ্ম। ১টি ছোট আঘাত ও কিন্তু আমাদের চোখের জন্য ও অনেক বড় ক্ষতির কারন হয়ে যেতে পারে । আর এই ক্ষেত্রে কন্টাক্ট লেন্স পরা অথবা খোলার সময়ে কিন্তু সামান্য অসতর্কতার জন্য ও আমাদের চোখের ক্ষতি করে দিতে পারে।

তাছাড়া ও অনেক সময় ধরে কন্টাক্ট লেন্স পড়লে দেখা যাবে যে, চোখের স্বাস্থ্যের জন্য সেটা মোটে ও ভাল হবে না। অনেক সময়তেই কন্টাক্ট লেন্সগুলি একটানা ভাবে অনেক সময় পর্যন্ত অনেকেই পরে থাকেন আর এটা কিন্তু ঠিক না এর ফলে কিন্তু আপনাদের চোখ এর অনেক বড় সমস্যা হয়ে যেতে পারে। 

কি রকমের সমস্যা হবে জেনে নিন –


১/ লেন্স পরিষ্কার করবার সময়ে তরলের ভিতরে যে রাসায়নিক পদার্থ রয়েছে, সেটা আমাদের চোখের এলার্জি করে দিতে পারে।
২/ চোখের ভিতরে কালো মণিতে পানি জমে যাওয়া শুরু করে দিতে পারে, আর যেটা পরে দেখা যাবে যে, ঘা হতে যাবে আর এইটা হবার কিন্তু অনেক সম্ভাবনা রয়েছে।
৩/  কন্টাক্ট লেন্সের চাপে চোখে স্থায়ী অ্যাসটিগমেটিজম বা দৃষ্টি স্বল্পতা হয়ে  যেতে পারে। 
লেন্স ঘোলা হয়ে গেলে নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

লেন্স পরা কিংবা খোলবার সময়ে ভালোভাবে করে হাত ধুয়ে নিতে হবে

অনেকেই আছি আমাদের  ভিতরে যারা অনেক কাজে বিজি থাকি যার ফলে সময় হয়ে উঠে না বা অনেক সময়ে আবার দেখা যায় যে  আলসেমি করে ও লেন্স পরা বা যখন খুলতে যাই তখন ভাল ভাবে করে হাত ভালো ভাবে ধুয়ে নিতে চাই না।

কিন্তু একটা কথা আপনাদের সব সময়ে মনে রাখা লাগবে যে , আমরা যে কোন কাজই করে থাকি না কেন সারা দিনের ভিতরে সেই কাজ করার সময়ে কিন্তু আমাদের হাত এর ভিতরে অনেক জীবাণু জমা হয়ে যেতে থাকে।  

আর তাই ভালোভাবে করে হাত না ধুলে কিন্তু এই জীবাণু আমাদের হাতের মাধ্যমেই লেন্সে চলে যাবে আর তারপরে দেখা যাবে যে , আমাদের চোখ এর ভিতরে সমস্যা হবে। অতএব লেন্স ধরার আগে আপনারা ভাল ভাবে করে হাত পরিষ্কার করে নিবেন । 

কন্ট্যাক্ট লেন্সের যত্ন কিভাবে নিবেন ?

  • যে সময়ে কিনবেন তখন আপনারা সবার আগে যে কাজটা করবেন সেটা হল উৎপাদন করা আর মেয়াদ শেষ কবে সেটার তারিখ দেখে নিবেন।
  • কন্ট্যাক্ট লেন্সের সঙ্গে নতুন সলিউশন কিনা লাগবে ।
  • প্রত্যেকটা কন্ট্যাক্ট লেন্সের জন্য আলাদা ভাবে বক্স ব্যবহার করবেন আর অবশ্যই সেটিকে  যেন সলিউশনপূর্ণ থাকে , সেইদিকে খেয়াল রাখবেন ।
  • লেন্সে কোনো রকমের বালি অথবা ময়লা ঢুকলে সাথে সাথেই কিন্তু আপনাদেরকে লেন্স খুলে ফেলতে হবে।
  • লেন্স যখন পরবেন তার আগে আপনাদেরকে অবশ্যই হাত ভালোমতো পরিষ্কার করবে নিবেন। কন্ট্যাক্ট লেন্স কখনোই নখ দিয়ে খুঁটবেন না আর যদি করেন তাহলে কিন্তু লেন্স ছিঁড়ে যাওয়ার অনেক সম্ভাবনা রয়েছে। 
  • লেন্স পরে থাকা অবস্থায় চোখের ভিতরে পানি দিবেন না।
  • ঘুমানোর আগে অবশ্যই লেন্স খুলে তারপরে ঘুমাতে যাবেন।

আমাদের শেষ কথা

চশমার বিকল্প হিসাবে বর্তমান সময়ে এখন কিন্তু  কন্ট্যাক্ট লেন্স অনেক দিন ধরেই ব্যবহার করা হচ্ছে । চশমার যে সকল সুবিধা আছে সেগুলো সবই পেয়ে যাবেন এই কন্ট্যাক্ট লেন্সের ভিতরে। আপনাদের ভিতরে যারা চশমা পরতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না তারা কন্ট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করে দেখতে পারেন। 

বর্তমান সময়ে এখন চোখের রঙ পাল্টানোর জন্য ও ব্যবহার করা হয়ে থাকে এই  কন্ট্যাক্ট লেন্স। আর তাই এটা এখন হয়ে উঠেছে ফ্যাশন এর ১টি অন্যতম অনুষঙ্গ। আমাদের আজকের আর্টিকেলটি ভাল লাগলে আমাদের ওয়েবসাইট এর সাথেই থাকুন।

আরও পড়ুনঃ https://tuneoflife.com/blog-2

Leave a Comment

%d bloggers like this: