সম্পুর্ন ফ্রিতে নিন ডুয়েল কারেন্সি প্রিপেইড মাষ্টার কার্ড। মাত্র 05 টি ধাপ পূরণ করে।

ইবিএল – নোভোএয়ার কো-ব্র্যান্ডেড ডুয়েল কারেন্সি প্রিপেইড মাষ্টার কার্ড

ডুয়েল কারেন্সি প্রিপেইড মাষ্টার কার্ড
ডুয়েল কারেন্সি প্রিপেইড মাষ্টার কার্ড

আজকে আলোচনা করবো, কিভাবে একদম ফ্রী তে ইষ্টার্ণ ব্যংক লিমিটেড (ইবিএল) এর ডুয়েল কারেন্সি প্রিপেইড মাষ্টার কার্ড পাওয়া যাবে।
এটি নোভোএয়ার স্মাইল এবং ইবিএল এর একটি কো-ব্র্যান্ডেড কার্ড।
নভোএয়ার – ইবিএল কো-ব্র্যান্ডেড প্রিপেইড কার্ড।

প্রথম ধাপঃ
কার্ড টি পেতে প্রথমে যে শর্তটি পূরণ করতে হবে তা হচ্ছে- নোভোএয়ার (NOVOAIR) এর ওয়েবসাইট থেকে স্মাইল গ্রাহক হিসেবে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। নীচের লিংক প্রবেশ করে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। রেজিষ্ট্রেশন সম্পন্ন হলে আপনকে একটি স্মাইল আইডি দেয়া হবে। এটা সংরক্ষণ করুন। যা ভবিষ্যতে দরকার পরবে।

http://secure.flynovoair.com/rewards/enroll.asp

দ্বিতীয় ধাপঃ
দ্বিতীয় শর্ত হচ্ছে- স্মাইল আইডি দিয়ে অন্তত একবার নোভোএয়ার এ ভ্রমণ করা। সেটা অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট বা ইন্টারন্যাশনাল ফ্লাইট যেকোনো টা হতে পারে।এবং শুধু ওয়ান ওয়ে হলেও হবে।
আপনার স্মাইল একাউন্ট লগিন করে অনলাইন টিকেট কিনতে পারেন। অথবা ডিরেক্ট কল করে কিনতে পারেন। সে ক্ষেত্রে যেনো অবশ্যই আপনার স্মাইল আইডি ইনভয়েস এ থাকে সেটা খেয়াল রাখবেন।

তৃতীয় ধাপঃ
আপনারা ভ্রমণের সময় দেয়া বোর্ডিং পাস টি সংরক্ষণ করুন। দেখবেন সেখাবে আপনার স্মাইল আইডি টি দেয়া আছে। ভ্রমণ শেষে সময় করে বসে নীচের ফর্ম দুইটি পূরন করুন। এগুলো একটি নোভোএয়ার এর কাছে আবেদন ফর্ম। অন্যটি আপনার ইনফর্মেশন ফর্ম। একটি PDF রিডার সফ্টওয়্যার ব্যবহার করে ফর্মগুলি ডিজিটালভাবে পূরণ করা যেতে পারে। অথবা আপনি ফর্ম প্রিন্ট আউট এবং হাত দ্বারা পূরণ করতে পারেন। ঠিকমত চেক করুন ঠিক যায়গায় সাইন এবং তারিখ দিয়েছেন কিনা। একটি পাসপোর্ট সাইজের ছবি নিয়ে তার পিছনে নাম এবং সাইন দিন। ছবিটি ফর্মের নির্দিষ্ট স্থানে আঠা দিয়ে লাগান। কোনো অবস্থায় পিন মারা যাবেনা।

আবেদন ফর্ম

কে ও আইসি ফর্ম


এবার সকল ডকুমেন্টস একসাথে করুন। চেক করুন নীচের ডকুমেন্টস গুলো সব দিয়েছেন।
১. ঠিক মতো ফিল আপ করা দুইটি ফর্ম। সাথে ছবি
২. এন আই ডি কার্ড, বা পাসপোর্ট, বা অফিস আইডি কার্ড এর ফোটোকপি। ই-টিন যদি থাকে তার ফোটোকপি
৩. আপনার ভ্রমণের বোর্ডিং পাশ। (পাশ হারিয়ে গেলে ইনভয়েস দিয়ে ও কাজ হয়)

চতুর্থ ধাপঃ
সব ডকুমেন্টস একয়াথে খামে করে কুরিয়ার করেদিন নীচের ঠিকানায় –
NOVOAIR – EBL কো-ব্র্যান্ডেড প্রিপেইড কার্ড
হাউস-50, রোড-11, ব্লক-এফ, বনানী, ঢাকা-1213।

এখন অপেক্ষা পালা। স্মাইল থেকে আপনার ডকুমেন্টস ভেরিফাই করে ইবিএল এ পাঠিয়ে দিবে। ১৫-৩০ এর মদ্ধে ই কার্ড টি আপনার ঠিকানায় চলে আসবে। এক্ষেত্রে কার্ড এবং পিন আলাদা কুরিয়ারে আসবে।

পঞ্চম ধাপঃ
এবার কার্ড এক্টিভেট করার পালা। খামে থাকা একনলেজ কাগজ টি সাক্ষর করে যেকোনো ইবিএল ব্যাংকের শাখায় জমা দিন। জমা দেওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যে কার্ড সক্রিয় করা হবে। ডলার ইউজ করতে চাইলে পাসপোর্ট এন্ডোর্স করে নিন।
এভাবেই পেয়ে যাবেন সম্পুর্ন ফ্রি তে প্রিপেইড মাষ্টার কার্ড।

ইবিএল এই কার্ড থেকে আপনি যেই সুবিধা গুলো পাবেনঃ

  • দ্বৈত মুদ্রা ইএমভি প্রিপেইড কার্ড
  • সবচেয়ে বড় মাস্টারকার্ড এটিএম নেটওয়ার্কে বিশ্বব্যাপী 24×7 ফান্ডে দ্রুত অ্যাক্সেস
  • যেকোন ইবিএল এটিএম থেকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে নগদ তোলা
  • বিশ্বজুড়ে দোকান এবং রেস্তোঁরাগুলিতে অ্যাক্সেস
  • একেবারে বিনামূল্যে রিলোডিং
  • দেশব্যাপী 1,300 জনেরও বেশি পার্টনার মার্চেন্টস থেকে ডিসকাউন্ট সুবিধা
  • প্রতিটি লেনদেনের সাথে “লেনদেন সতর্কতা” – চাহিদা অনুযায়ী
  • অধিক নিরাপত্তার জন্য EMV কার্ড

NOVOAIR (নোভোএয়ার) থেকে এক্সক্লুসিভ অফার
-প্রথম ফ্লাইটের পর NOVOAIR-EBL কো-ব্র্যান্ড প্রিপেইড কার্ডে সাইন ইন করলে 200 বোনাস মাইল
-অনলাইনে SMILES মাইলসের রিডেম্পশন সুবিধা

  • NOVOAIR এর সাথে ফ্লাইট করার সময় বোনাস SMILES মাইল
  • NOVOAIR সেলস কাউন্টারের মাধ্যমে অগ্রাধিকার পরিষেবা
  • হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিকে অগ্রাধিকার চেক-ইন, বোর্ডিং এবং লাগেজ ডেলিভারি। বিমানবন্দর, ঢাকা
  • অতিরিক্ত লাগেজ ভাতা ( স্যাফায়ারের জন্য ১০ কেজি এবং প্লাটিনাম স্তরের সদস্যের জন্য ১৫ কেজি )
  • হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক প্ল্যাটিনাম স্তরের সদস্যদের জন্য ভিআইপি গাড়ি পরিষেবা । বিমানবন্দর, ঢাকা (প্রাপ্যতা সাপেক্ষে)

ফি এবং খরচ?
ইস্যু ফি: প্রযোজ্য নয়
বার্ষিক ফি: প্রথম তিন (০৩) বছরের জন্য প্রযোজ্য নয়। তারপর ২০০ টাকা + ভ্যাট চাহিদা অনুযায়ী প্রযোজ্য হবে।
কার্ড প্রতিস্থাপন ফি: BDT ২০০+ VAT
পিন প্রতিস্থাপন ফি: BDT ২০০+ ভ্যাট

সর্বোচ্চ রি-লোড সীমা?
শাখা থেকে প্রতিদিন- BDT 100,000
ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং থেকে প্রতিদিন- BDT 20,000
KYC ফর্ম 20,000 টাকার উপরে পুনরায় লোড করার জন্য বাধ্যতামূলক
POS এর মাধ্যমে পেমেন্ট: প্রতিদিন ০৬ টি লেনদেনে 40,000 টাকা
এটিএম দ্বারা উত্তোলন: প্রতিদিন ০৬ টি লেনদেনে 50,000 টাকা

আরও পড়ুনঃ https://tuneoflife.com/blog-2/

Leave a Comment

%d bloggers like this: